মোট আক্রান্ত

১,১৫,৭৮৬

সুস্থ

৪৬,৭৫৫

মৃত্যু

১,৫০২

  • গাজীপুর ২,৫১১
  • কুমিল্লা ২,৪৭১
  • বগুড়া ২,০৮৫
  • সিলেট ১,৮১৪
  • নোয়াখালী ১,৭০৭
  • কক্সবাজার ১,৬৮৮
  • মুন্সীগঞ্জ ১,৬৬১
  • ময়মনসিংহ ১,৩১৫
  • ফরিদপুর ১,২৪১
  • বরিশাল ১,১২৯
  • নরসিংদী ১,১০৯
  • কিশোরগঞ্জ ১,০৮৩
  • খুলনা ৮০০
  • সুনামগঞ্জ ৭৮৮
  • রংপুর ৭৮৩
  • ফেনী ৬৪৫
  • মাদারীপুর ৬০৮
  • লক্ষ্মীপুর ৫৯৫
  • চাঁদপুর ৫৬৪
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৫৩৩
  • দিনাজপুর ৫০৭
  • গোপালগঞ্জ ৪৮৩
  • মানিকগঞ্জ ৪৭২
  • জামালপুর ৪৪০
  • টাঙ্গাইল ৩৭৯
  • শরীয়তপুর ৩৭৮
  • নেত্রকোনা ৩৬৬
  • যশোর ৩১৪
  • কুষ্টিয়া ৩০৭
  • নীলফামারী ২৯৮
  • হবিগঞ্জ ২৭৬
  • পাবনা ২৭০
  • মৌলভীবাজার ২৬৫
  • সিরাজগঞ্জ ২৬১
  • জয়পুরহাট ২৫৩
  • পটুয়াখালী ২৪৪
  • নওগাঁ ২৩৯
  • রাজশাহী ২৩৭
  • রাজবাড়ী ২২১
  • গাইবান্ধা ২১১
  • শেরপুর ২১১
  • ভোলা ১৮৮
  • ঠাকুরগাঁও ১৮০
  • চুয়াডাঙা ১৬৯
  • বরগুনা ১৬২
  • নাটোর ১৩৫
  • পিরোজপুর ১৩১
  • পঞ্চগড় ১২৬
  • ঝালকাঠী ১২৫
  • ঝিনাইদহ ১২৩
  • কুড়িগ্রাম ১২০
  • রাঙ্গামাটি ১১৬
  • বান্দরবান ১১১
  • বাগেরহাট ১০২
  • সাতক্ষীরা ১০০
  • খাগড়াছড়ি ৯৪
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮৬
  • লালমনিরহাট ৭৬
  • নড়াইল ৭৩
  • মেহেরপুর ৪০
  • «»
  • ঢাকা সিটির তথ্য
  • মিরপুর এলাকা ১,৫৮১
  • উত্তরা ৬৭৬
  • মোহাম্মদপুর ৫৯২
  • মহাখালী ৫২২
  • মুগদা ৫০১
  • যাত্রাবাড়ী ৪৮৪
  • ধানমন্ডি ৪৬৯
  • মগবাজার ৩৩৩
  • তেজগাঁও ৩১৫
  • কাকরাইল ৩০৪
  • রামপুরা ২৯৬
  • খিলগাঁও ২৯৩
  • লালবাগ ২৭০
  • বাড্ডা ২৬৪
  • গুলশান ২৩৮
  • রাজারবাগ ২৩০
  • মালিবাগ ২০৮
  • বাসাবো ১৮৬
  • গেন্ডারিয়া ১৭৩
  • বাবু বাজার ১৬২
  • ওয়ারী ১৫৪
  • আগারগাঁও ১৪০
  • বংশাল ১৩৭
  • শ্যামলী ১৩৫
  • শাহবাগ ১২৯
  • বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা ১২৯
  • ডেমরা ১১৮
  • আজিমপুর ১১৬
  • আদাবর ১১৫
  • হাজারীবাগ ১১৫
  • বনানী ১১৩
  • বনশ্রী ১১১
  • পল্টন ১০৮
  • শান্তিনগর ১০৫
  • রমনা ১০৫
  • পোস্তগোলা
  • «»
  • জেলা সমূহের তথ্য
  • ঢাকা ২৭,২৬৭
  • চট্টগ্রাম ৫,৫৮৫
  • নারায়ণগঞ্জ ৪,৭০০
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - স্বাস্থ্য অধিদফতর
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

কোন ডালের পুষ্টিগুণ বেশি?

164
SHARES
1.3k
VIEWS
ADVERTISEMENT
ADVERTISEMENT

তৃণমুল ডেস্ক :

বাজারে বিভিন্ন ধরনের ডাল পাওয়া যায়। এক এক ডালের স্বাদ এক রকম। দৈনন্দিন জীবনে খাওয়ার পাতে ডাল ছাড়া ভাবাই যায় না, আমাদের মধ্যে অনেকেই ডাল খেতে পছন্দ করি, অনেকের আবার বিশেষ কোনও ডালের প্রতি আসক্তি থাকতে পারে। প্রোটিনে ভরপুর এই খাদ্য আমাদের খাদ্য তালিকায় থাকবে না এমনটা বোধহয় আমরা কল্পনাও করতে পারি না। শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন পুষ্টি, ভিটামিন ও খনিজ আমরা এই ডাল থেকেই পেয়ে থাকি। আপনার শরীরকে সুস্থ সবল রাখতে ডালের গুরুত্ব অপরিসীম।

ডাল জাতীয় খাদ্য আমরা বিভিন্ন ভাবে খেয়ে থাকি। এক একজনের পছন্দের তালিকায় এক এক রকম ডাল জায়গা জুড়েছে, তবে আপনি যে ডালই পছন্দ করুন না কেন, তার পুষ্টি গুণ কতটা সেটা অবশ্যই যাচাই করে নেবেন। বাজারে সাধারণত ৫ রকম ডাল পাওয়া যায়। সেই গুলো সম্পর্কে একটু জেনে নিন। তারপর আপনিই পছন্দ করুন কোন ডাল খাবেন।

মুগ ডালের পুষ্টি গুণ:

সাধারণটি বাজারে দুই প্রকার মুগ ডাল পাওয়া যায়, একটা খোসা ছাড়া হলুদ রঙের আর একটি খোসা সমেত সবুজ রঙের। এই ডাল খুব সহজে হজম হয়ে যায়, যারা নিজেদের ওজন নিয়ে খুবই সতর্ক, তাদের জন্য এই ডাল abshyi কাজ করে। এই ডাল প্রোটিন, প্রয়োজনীয় অ্যামিনো অ্যাসিড, ফাইবার ও ভিটামিন বি১ -এ ভরপুর।

মুগ ডালের উপকারিতা:

– ওজন কমাতে সাহায্য করে।

– গর্ভবতী মহিলাদের জন্য মুগডাল খুবই উপকারী।

– শরীরে জমে থাকা অতিরিক্ত কোলেস্টেরল কম করতে সাহায্য করে মুগ ডাল।

মুসুরি ডাল:

বেশির ভাগ রান্নাঘরেই বোধহয় এই ডালের ব্যবহার সবচেয়ে বেশি। শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় প্রোটিন, অ্যামিনো অ্যাসিড, ফাইবার, পটাশিয়াম, আয়রন, ভিটামিন বি১ প্রভৃতি প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় এই ডালের মধ্যে। লাল রঙের মুসুরি দলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার ও প্রোটিন থাকে। মাত্র এক কাপ মুসুর ডালে ২৩০ ক্যালোরি, প্রায় ১৫ গ্রাম ফাইবার এবং ১৭ গ্রাম প্রোটিন থাকে।

মুসুরি ডালের উপকারিতা:

– মুসুরি ডাল পেটের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে, সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

– শরীরে পটাশিয়ামের ঘাটতি থাকলে অবশ্যই মুসুরি ডাল খান, কারণ এই ডাল পটাশিয়ামের ঘাটতি পূরণ করে।

– শরীরে জমে থেকে কোলেস্টেরল দূর করে, শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

অড়হর ডাল:

সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় অড়হর ডাল, এই ডাল বেশির ভাগ মানুষই খুবই পছন্দ করে। বিভিন্ন ভাবে খুবই সুস্বাদু এই ডাল প্রস্তুত করা হয়। এই ডালে আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি এবং পটাসিয়াম থাকে। আপনার শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখতে সাহায্য করে এই ডাল।

অড়হর ডালের উপকারিতা:

– অড়হর ডালে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। এটি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে।

– নিয়মিত ফাইবার গ্রহণ করলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়, স্ট্রোক এবং ওজনও নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।

– এতে ফলিক অ্যাসিড পাওয়া যায়। যা মহিলাদের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।

– এই অড়হর কার্বোহাইড্রেটের একটি ভাল উৎস। এর সাহায্যে দেহর শক্তি বৃদ্ধি পেতে পারে।